1. admin@thedailyintessar.com : rashedintessar :
রবিবার, ১৪ অগাস্ট ২০২২, ০৬:৪৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ:

ম্যারাডোনা: কীর্তিমানের মৃত্যু নেই

ফারহান আরিফ :
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী, ২০২১

ডিয়েগো আরমান্ডো ম্যারাডোনা। মাত্র ৬০ বছরের একটা জীবনের গল্প! নান্দনিক এ গল্পের শুরু যেখান থেকেই শুরু হোক না কেন, শেষ করা কঠিন। এমনকি একদম অন্তিমের আগ মূহুর্ত থেকে হলেও!

ম্যারাডোনার জীবনের দিকে তাকিয়ে যে কেউই ঈর্ষাণ্বিত হয়ে বলবেন, “এভাবেও বেঁচে থাকা যায়!” জীবনটাকে যেভাবে চেয়েছেন, সেভাবেই উপভোগ করেছেন। যা করতে চেয়েছেন, তাই করেছেন। আমরা যেভাবে বলি, “A full of life!”

ম্যারাডোনার ফুটবলশৈলী নিয়ে বলার মত সাহস আমার নেই। সেটা ফুটবলবেত্তাদের কাজ। অমন একজন চ্যাম্পিয়নকে বিশ্লেষণ করতে গেলে কেবলমাত্র স্ট্যাটিস্টিকসটাই যথেষ্ট নয়। তার কালে উপস্থিত চর্মচক্ষু আর ইনটিউশনাল রেসপন্সের অনেক বেশি প্রয়োজন। সেই সৌভাগ্য আমাদের প্রজন্মের হয় নি। আমরা যা দেখেছি, হচ্ছে ইউটিউবের কল্যাণে।

তাহলে ম্যারাডোনা আমাদের হিরো কেন? কারণ এই গল্পের শেষ হয় নি কখনো। ম্যারাডোনা এমন একজন ছিলেন, যিনি একটা যুগ সৃষ্টি করেছিলেন। আর সেই যুগে কারো অংশীদারীত্ব ছিল না। একজন কুমোর যেমন একটা সাধারণ মাটির দলাকে শিল্পে রূপান্তরিত করেন; নান্দনিকতার ছোঁয়া দিয়ে থাকেন, ম্যারাডোনা তেমনি একজন। দুইটা সাধারণ দলকে চ্যাম্পিয়ন বানানোর এক অসাধারণ শিল্পী তিনি। ম্যারাডোনা থাকবেন, যতকাল ফুটবল থাকবে; যতবার রেফারির বাঁশি বাজবে।

ম্যারাডোনার ফুটবল আমরা দেখি নি; কিন্তু ফুটবলের প্রতি তার ভালবাসা আমরা দেখেছি। আমার ক্ষেত্রে ফুটবলের মাঝে যে একটা প্যাশন, নান্দনিকতা, আবেগের উচ্ছ্বাস থাকে- সেটার সৃষ্টি হয়েছে ম্যারাডোনা থেকেই। এরপরও ম্যারাডোনা আমার হিরো কেবলই ফুটবলীয় কারণে নয়। তিনি আমার হিরো তার বিপ্লবী চরিত্রের জন্য। একজন সেলেব্রিটি যেসব প্রথা মেনে চলে থাকেন, ম্যারাডোনা সেটা ভেঙেছিলেন। সেলেব্রিটিদের “পশ” জীবনময়তার ছোঁয়া গায়ে মাখান নি; বিতর্ককে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েছেন; মজলুমের পাশে দাঁড়িয়ে নিজেকে “গণ” হিসেবে পরিচিত করেছেন। বিশ্বের বৃহৎ পরাশক্তিরা যে কনভেনশন সেন্টারে বিশ্ববাণিজ্যের ভবিষ্যত নির্ধারণে মিলিত হয়েছেন, তার বাইরের খোলা রাস্তায় হাজার হাজার প্রতিবাদী তরুণের সাথে তিনি স্লোগানে স্লোগানে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তার সেই প্রতিবাদকে গানে গানে ধরতে চেয়ে মাইকেল সৃষ্টি করেছেন তার মাস্টারপিস “They don’t really care about us”

ম্যারাডোনা কথনের সার্থকতা এখানেই। এই শৃঙ্খল ভাঙার গল্প, জীবনময়তা, গণ আরাধনার কেন্দ্রে থাকাই ম্যারাডোনা চরিত্রের অমরত্ব। ম্যারাডোনা থাকবেন; বিপ্লবী তরুণের ব্যারিকেড ভাঙার অনুপ্রেরণায়, জীবনচক্রে অনুশোচনা নামক এবস্ট্রাক্টকে ঝেঁটিয়ে বিদেয় করার তাড়নায়।

সংবাদটি সংরক্ষন করতে সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন..

Leave a Reply

এই বিভাগের আরও খবর...

© All rights reserved  2021 The Daily Intessar

Developed ByTheDailyIntessar
error: Content is protected !!